নিষিদ্ধ হলো নিপুনের ছবি ‘ধূসর কুয়াশা’

জুলাইয়ে সেন্সরবোর্ডে জমা পড়েছিলো জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ী অভিনেত্রী নিপুনের ‘ধুসর কুয়াশা’ ছবিটি। সেন্সর বোর্ডের আপত্তির প্রেক্ষিতে নির্মাতা উত্তম আকাশ কিছু দৃশ্য কর্তন ও পরিমার্জন করে ছবিটি ফের জমাও দিয়েছিলেন। এ সপ্তাহে দ্বিতীয়বার দেখার পর ছবিটি বাতিল বা নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছেন সেন্সর বোর্ড কর্তৃপক্ষ। ১১ নভেম্বর বিকেলে বাংলানিউজের সঙ্গে এ নিয়ে কথা হয় সেন্সর বোর্ডের সদস্য মুন্সী জালালউদ্দিনের। তিনি বলেন, ‘চলচ্চিত্রটি গল্প অবিন্যস্ত ও অসংলগ্ন। প্রথমবার দেখার পর কারেকশন দেওয়া হলেও সেটি মানেননি নির্মাতা। এ ক্ষেত্রে প্রায় সব ত্রুটি রেখেই ফের জমা দেওয়া হয় ছবিটি। এ কারণে সেন্সর বোর্ডের সদস্যরা ছবিটিকে বাতিল করেছেন।’

কী কী আপত্তিকর বিষয় আছে ‘ধূসর কুয়াশা’য়? এমন প্রশ্নের জবাবে মুন্সী জালালউদ্দিন জানান, ছবিটিতে দেখানো হয়েছে আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনির সামনে অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে। এর আইনি কোনো পদক্ষেপ বা প্রতিরোধের চিত্র নেই ছবিতে। এখানে পুলিশকে হাস্যকরভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। পাশাপাশি রয়েছে শিশুদের পঙ্গু দেখানো, নারী ধর্ষণ, নারী পাচার ও নারীকে নিলামে তোলা প্রভৃতি।

‘ধূসর কুয়াশা’র দৃশ্য‘ধুসর কুয়াশা’ মুক্তির পথ আপাতত বন্ধ। এ ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্টরা আইনের আশ্রয় নিয়ে ছবিটি মুক্তি দিতে পারেন কি-না সেটিই দেখার বিষয়। নিপুনের পাশাপাশি ছবিটিতে আরও আছেন পুষ্পিতা পপি ও নবাগত মুন্না।